1. info@samagrabangla.com : Sinbad :

সরিষার তেল চুলের জন্য কতটা উপযোগী?

  • Update Time : Tuesday, September 4, 2018
  • 32 Time View
  • চুলের সমস্যার সমাধান করে সরিষার তেল
  • সরিষার তেলে আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড (Alpha Fatty Acid) থাকে যা চুল মসৃণ ও মজবুত করে
  • চুল রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে গিয়েছে? মাথার তালুতে সরিষার তেল মালিশ করুন

বাংলার ঘরে ঘরে রান্নাঘরে আর যাই থাকুক না কেন, সরিষার তেল থাকবেই। শুধুমাত্র বিভিন্ন রান্নাতে ব্যবহার করা ছাড়াও ইমিউনিটি (Immunity) বাড়ানো, ঠান্ডার চিকিৎসা করা, ত্বক মসৃণ করা এবং সর্বোপরি চুলের বিভিন্ন উপকারে লাগে সরিষার তেল। লম্বা চুল দেখতে আমাদের সকলেরই ভাল লাগে। কিন্তু নিজের চুল কীভাবে লম্বা করে তুলবেন তা বুঝে উঠতে পারছেন না? দূষণ, জল, রাসায়নিক ইত্যাদির প্রভাবে আমাদের চুল রুক্ষ, শুষ্ক হয়ে যায়। কিন্তু সরিষার তেল নিয়মিত ব্যবহারে আপনি সে সব সমস্যার থেকে মুক্তি পেতে পারেন। সরিষার তেলে উপস্থিত উপাদান আমাদের চুল করে তোলে স্বাস্থ্যজ্বল, মসৃণ এবং সুন্দর।

চুলের উপকারে সরিষার তেল

১. প্রাকৃতিক কন্ডিশনার (Conditioner)
সরিষার তেলে আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড (Alpha Fatty Acid) থাকে যা চুল সুন্দর, স্বাস্থ্যজ্বল রাখে। এছাড়া আলফা ফ্যাটি অ্যাসিড ((Alpha Fatty Acid) দারুণ কন্ডিশনারের ((Conditioner)) কাজ করে। ফলে চুল দ্রুত বৃদ্ধি হয়।সরিষার তেল চুল মজবুত করতে সাহায্য করে।

২. নারিশ করে 
আজকাল চুল পড়া খুবই সাধারণ সমস্যা। এর কারণ চুলের ফলিকল (Palmolein) দুর্বল হয়ে নষ্ট হয়ে যাওয়া হতে পারে। চুলে নিয়মিত সরিষার তেল মালিশ করলে ফলিকল মজবুত হয়ে চুল পড়া বন্ধ হবে।

৩. ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ 
সরিষার তেলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ইত্যাদি মিনারেল (Antioxidants, minerals, calcium, magnesium, Mineral) এবং ভিটামিন A, D, E ও K থাকে। এছাড়াও থাকে জিঙ্ক, বিটা ক্যারোটিন ও সেলেনিয়াম (Zinc, beta carotene and selenium) যা চুল লম্বা হতে সাহায্য করে।

৪. রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি করে           
আপনার চুল রুক্ষ, শুষ্ক, নিষ্প্রাণ হয়ে গেলে নিয়মিত মাথার তালুতে সরিষার তেল মালিশ করুন। এর ফলে মাথার তালুতে রক্ত সঞ্চালন ঠিক ভাবে হবে এবং চুলের গোড়া মজবুত হয়ে চুল পড়া বন্ধ হবে।
চুল সুন্দর, বড়, মজবুত ও স্বাস্থ্যজ্বল করতে সরিষার তেল অত্যন্ত উপকারী।

৫. চুল বড় হতে সাহায্য করে 
সরিষার তেলে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে যা চুল বড় হতে সাহায্য করে।

৬. অ্যান্টি ফাঙ্গাল উপাদান বর্তমান 
সরিষার তেলে অ্যান্টি ফাঙ্গাল (Anti fungal) উপাদান থাকায় তা চুলের খুশকি ও চুলকানি দূর করে। ফাঙ্গাসে চুলের গোড়া বুজে গিয়ে চুল পাতলা হয়ে যায়। সে সমস্যা সমাধান করে সরিষার তেল।
চুল বড় করতে কীভাবে সরিষার তেল ব্যবহার করবেন জেনে নিন 

বড় চুল পেতে সরিষার তেলের ব্যবহার জেনে নিনঃ

১. দই ও সরিষার তেলের মিশ্রণ 

টক দইয়ের সঙ্গে সরিষার তেল মিশিয়ে মাথার তালুতে ভালভাবে লাগান। তয়ালে গরম জলে ভিজিয়ে মাথায় পেঁচিয়ে রাখুন। ৩০-৪০ মিনিট পর মৃদু শ্যাম্পু দিয়ে ভালভাবে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার বা দু’বার প্রায় একমাস ধরে এই পদ্ধতি অবলম্বন করুন আর ফলাফল দেখুন!
মাসে দুই বা একবার সরিষার তেলের মিশ্রণ ব্যবহার করুন।

২. সরিষার তেল ও অ্যালোভেরার মিশ্রণ
একটা পাত্রে সরিষার তেল ও অ্যালোভেরা (Alovers) মেশান। মাথার তালুতে ভালভাবে মিশিয়ে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে দিন। তারপর মৃদু শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভাল ফল পেতে সপ্তাহে দুই দিন এই পদ্ধতি অবলম্বন করুন। এই মিশ্রণ আপনার চুল মসৃণ ও স্বাস্থ্যজ্বল করবে ও চুল পড়া বন্ধ করবে।

৩. লেবুর রস ও সরিষার তেলের মিশ্রণ 
একটা বাটিতে সরিষার তেল, লেবুর রস ও ধনে গুঁড়ো নিয়ে ভালভাবে মেশান। মাস্ক হিসাবে চুলে নিয়মিত মাখুন। আধ ঘণ্টা রেখে মৃদু শ্যাম্পু সহযোগে ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে চুল কন্ডিশন হবে, মজবুত হবে এবং খুশকি দূর হয়ে চুলের আর্দ্রতা বজায় থাকবে।

লেবুর রস ও সরিষার তেলের মিশ্রণ খুশকি দূর করে।

৪. কলা ও সরিষার তেলের মিশ্রণ 

একটা পাকা কলা নিয়ে চটকে নিন। সরিষার তেল ও দই মেশান। মিশ্রণটা ভালভাবে মাথার তালুতে লাগান এবং আধ ঘন্টা পর সাধারণ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে চুলে কন্ডিশনার লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এরপর হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না। এই মিশ্রণটা আপনার চুল মসৃণ, উজ্জ্বল, মজবুত ও নরম করে তুলবে।
আপনার চুলের হারানো জেল্লা ফিরে পান এবং রুখ, শুষ্ক চুলকে বিদায় জানান!

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category