1. mahfujpanjeree@gmail.com : Mahfuzur-Rahman :
  2. admin@samagrabangla.com : main-admin :
  3. mahmudursir@gmail.com : samagra :

রজনীকান্ত সিনেমা মানেই রাজ্যজুড়ে উৎসব

  • Update Time : সোমবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০২১

ভারতীয় চলচ্চিত্রের তিনি জীবন্ত কিংবদন্তি। তাঁর সিনেমা মানেই রাজ্যজুড়ে উৎসব। প্রচলিত অভিনয়ের নিয়ম মানেন না যে অভিনেতা, নিজস্ব ধাঁচের অভিনয়শৈলীর কারণে ভক্তদের কাছে তিনি যেন দেবদূত। চিরসবুজ এই অভিনেতা প্রায় ৪০ বছর ধরে দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমায় কাজ করে যাচ্ছেন দাপটের সঙ্গে। এই অভিনেতার নাম রজনীকান্ত। ১২ ডিসেম্বর তাঁর ৭১তম জন্মদিন।

তামিল এই অভিনেতা ছিলেন বাসের কন্ডাক্টর। সেখান থেকে চলে এলেন অভিনয়ে, সিনেমায় এখনো তাঁর একক আধিপত্য। ভারতের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেতা ছিলেন তিনি। তাঁর অভিনয়ের শুরু ছোট একটি চরিত্র দিয়ে। ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি উচ্চতা ছিল বলে অনেকেই বলেছিলেন, অভিনেতা হতে পারবেন না। ১৯৭৫ সালে ‘অপূর্ব রাগানগাল’ ছবিতে প্রথম অভিনয়ের সুযোগ পান তিনি। চরিত্রটি ছোট্ট, সে কারণে তাঁর দিকে কারও চোখ পড়েনি। কিন্তু তিনিই সবার চোখকে ছাপিয়ে পরিচালকের নজর কাড়েন।

পরের বছর ১৯৭৬ থেকে ছোট ছোট চরিত্রে খলনায়ক হিসেবে কাজ করতে শুরু করলেন তিনি। টানা পাঁচ বছর অভিনয় করলেও দর্শক তাঁকে আলাদা করে চিনতে পারেননি। অবশেষে আশির দশকের শেষ দিকে জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করেন তিনি। এই সময়টা ছিল তাঁর ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট। তখন অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে ‘বিজয়’ ছবিতে অভিনয় করেন। পরে ‘আন্ধা কানুন’, ‘চালবাজ’ এবং ‘হাম’ সিনেমাগুলো তাঁকে স্থায়ীভাবে তামিল সুপারস্টার বানিয়ে দেয়। এখনো তাঁর সিনেমা মানেই বক্স অফিস রেকর্ড। সেটা হোক রোমান্টিক, থ্রিলার বা অ্যাকশন।

প্রথম ভারতীয় অভিনেতা হিসেবে রজনীকান্ত অ্যানিমেশন ও থ্রিডি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। লেখক এবং প্রযোজক হিসেবেও তিনি নাম লিখিয়েছেন। তাঁর অভিনীত সিনেমার সংখ্যা ১৭৫-এর বেশি। তামিল এই সুপারস্টারের সিনেমা মুক্তির দিন অফিস–আদালত ফাঁকা হয়ে যেত। তাই বাধ্য হয়ে সেই দিনগুলোতে ছুটি ঘোষণা করত কর্তৃপক্ষ।

দক্ষিণ ভারতের সিনেমাপ্রেমীদের কাছে রজনীকান্ত মানেই জীবনের অনুষঙ্গ। দক্ষিণ ভারতের মানুষের ঘরে ঘরে বাঁধাই করা পোস্টারে দেখা যায় রজনীকান্তকে। অথচ মজার ব্যাপার হচ্ছে, জনপ্রিয় এই অভিনেতা জন্মসূত্রে তামিল নন। তাঁর জন্ম হয়েছিল বেঙ্গালুরুতে। ভারতসহ বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে আছে তাঁর ভক্ত। সব সময় তিনি ভক্তদের অনুপ্রাণিত করতে চান।

যাঁর সিনেমা মুক্তির দিন এত উন্মাদনা, তিনি কিন্তু নিজের ছবি নিয়ে তেমন চিন্তিত হন না। সিনেমা মুক্তি পেলে কখনোই দর্শকদের সঙ্গে বসে তিনি দেখেন না। সে সময় হয়তো চেন্নাই বা হিমালয়ে বেড়াতে চলে যান। সিনেমায় তাঁকে নতুন সব প্রযুক্তি ব্যবহার করতে দেখা যায়। তবে ব্যক্তিজীবনে প্রযুক্তির ব্যবহার থেকে বেশ দূরে থাকার চেষ্টা করেন রজনীকান্ত। ২০১৪ সালে তিনি প্রথম টুইটারে অ্যাকাউন্ট খোলেন। সেদিনই তাঁর অনুসারী সংখ্যা দাঁড়ায় দুই লাখ। ভারতীয় কোনো তারকার ক্ষেত্রে এ ঘটনা বিরল। ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি যুক্তরাষ্ট্রের চলচ্চিত্রসহ অন্যান্য দেশের সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন। ভারত সরকার রজনীকান্তকে ‘পদ্মভূষণ’ ও ‘পদ্মবিভূষণ’–এ সম্মানিত করেছে।

রজনীকান্তের আসল নাম শিবাজি রাও গায়কোয়াড। বিশ্ববাসী তাঁকে চেনে রজনীকান্ত নামে। এক মারাঠি পরিবারে তাঁর জন্ম ১৯৫০ সালের ১২ ডিসেম্বর। মা রমাবাই ছিলেন গৃহিণী ও বাবা রামোজি রাও গায়কোয়াড ছিলেন পুলিশ কনস্টেবল।

সূত্র: আইএমডিবি, ইন্ডিয়ান টাইমস।

তথ্যটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

More News Of This Category