1. mdmasuk350@gmail.com : Abdul Ahad Masuk : Abdul Ahad Masuk
  2. jobedaenterprise@yahoo.com : ABU NASER : ABU NASER
  3. suyeb.mlc@gmail.com : Hafijur Rahman Suyeb : Hafijur Rahman Suyeb
  4. lilysultana26@gmail.com : Lily Sultana : Lily Sultana
  5. mahfujpanjeree@gmail.com : MahfuzurRahman :
  6. admin@samagrabangla.com : main-admin :
  7. mamun@samagrabangla.com : Mahmudur Rahman : Mahmudur Rahman
  8. amshipon71@gmail.com : MUHIN SHIPON : MUHIN SHIPON
  9. yousuf.today@gmail.com : Muhammad Yousuf : Muhammad Yousuf

ফেসবুকে ফেক আইডি চেনার উপায় জেনে নিন

  • Update Time : Thursday, July 2, 2020

বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুক। এখানে নিমিষেই ভৌগলিক সীমার তোয়াক্কা না করে মানুষে মানুষে বন্ধুত্ব হচ্ছে। হচ্ছে প্রেম, এমনকি বিয়ে। অনেকে ফেসবুক বন্ধুর টানে পাড়ি জমাচ্ছেন ভিনদেশে। কিন্তু আপনি যেসব মেয়ে বন্ধুর সঙ্গে চ্যাটিং করছেন, বন্ধুত্ব করছেন তাদের আইডিগুলো ফেক নয়তো? কোনো ধরনের ভেরিফিকেশন ছাড়া এ সাইটটি ব্যবহারের সুযোগ থাকায় অনেকেই ফেক আইডি খুলে প্রতারণার আশ্রয় নেয়। অনেক সময় কারো আইডি আসল না নকল সেটা বুঝতে হিমশিম খেতে হয়। বিশেষ করে মেয়েদের আইডির ক্ষেত্রে এই সমস্যা আরো প্রকট। আসুন জেনে নিই ফেসবুকে ফেক আইডি চেনার কিছু উপায়-

প্রোফাইল পিকচার: বর্তমানে কিছু কিছু ছবি আছে যা অনেক ফেক আইডিতেই প্রোফাইল পিকচার হিসেবে ব্যবহার করছে জাল আইডি ব্যবহারকারীরা। এই ছবিগুলো দেখলেই চেনা যায়। এসব ছবি যদি ব্যবহার হয়, তাহলে বুঝবেন ওই আইডি ফেক হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আইডিতে শুধুমাত্র একটি ছবিও ফেক আইডির লক্ষণ। এ ছাড়া ফেক আইডিতে আসল সাইজের ছবি থাকে না, থাকে ছোট সাইজের বা কেটে নেওয়া ছবি।

বন্ধু তালিকা বা ফ্রেন্ডলিস্ট: আইডির বন্ধু তালিকা যদি পাবলিক করা থাকে, তাহলে দেখে নিতে পারেন। এ ছাড়া বিভিন্ন উপায়ে গোপন করা বন্ধু তালিকাও দেখা যায়। মেয়েদের ক্ষেত্রে বন্ধু তালিকায় যদি ৩/৪ হাজার বন্ধু থাকে তাহলে সেই আইডি ফেক হওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল। ছেলেদের আইডির ক্ষেত্রে এটা প্রযোজ্য নয়।

পোষ্ট: আইডিতে যদি নোংরা বা খারাপ পোস্ট থাকে, তাহলে বুঝতে হবে সেটা জাল আইডি। কেননা কেউই তার নিজ ফেসবুক আইডিতে নোংরা পোষ্ট দিয়ে নিজেকে সবার সামনে খারাপ বানাতে চায় না। এটা হলে বুঝবেন ওই আইডি ১০০ শতাংশ ফেক।

পেজ লাইক: আপনার সন্দেহের আইডিটি কী ধরনের পেজে লাইক দিয়েছে সেটা তার রিসেন্ট অ্যাকটিভিটিতেই প্রদর্শন করে, আর টাইমলাইনে তো বটেই। যদি ফেক আইডি হয়, ১০-১২ টা প্রাপ্তবয়স্ক পেজ আপনার নজরে পড়তে পারে। এ ছাড়া খেয়াল করুন কেমন গ্রুপে সে যুক্ত। সাধারণত লোকে এমন গ্রুপে জয়েন করে যা তার স্কুল/কলেজ/ইউনিভার্সিটি, কর্মক্ষেত্র, কোনো সেবামূলক কাজ ইত্যাদির সঙ্গে যুক্ত। ফেক আইডি এসবের তোয়াক্কা করে না। যেখানেই গ্রুপ পায়, জয়েন করে ফেলে।

ইউজার নেম আর আইডি নেম একই কিনা দেখুন: ফেক আইডিধারীদের অনেকেই এই জায়গাটায় ভুল করে ফেলে। ফেসবুকে ইউজার নেমটি একবারে বেশি বদলানো যায় না। তাই এটা হতে পারে আপনার জন্য ফেক বা রিয়েল আইডি বোঝার অন্যতম উপায়। মিলিয়ে দেখুন ইউজার নেম এবং সেই আইডিটির নাম একই কিনা।

পেজ লাইক ইনভাইট: কেউ যদি মেয়ের আইডি থেকে বারবার তার ফেসবুক পেজগুলো লাইক দেওয়ার জন্য ইনভাইট পাঠায় তাহলে বুঝতে হবে ওই আইডি ফেক। ওই আইডিটি খুলেছে তার ফেসবুক পেজের লাইক বাড়ানোর জন্য।

মোবাইল নম্বর দেওয়া: আইডি মেয়েদের নামে কিন্তু যদি দেখেন ওই আইডিতে এক বা একাধিক মোবাইল নম্বর দেওয়া আছে, তাহলে বুঝতে হবে ওই আইডিটা ফেক। কারণ মেয়েরা সাধারণত ফেসবুকে নিজের মোবাইল নম্বর দেয় না। দিলেও সেটা ‘অনলি মি’ করে রাখে যাতে কেউ দেখতে না পারে।

তথ্যটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

More News Of This Category