1. mahfujpanjeree@gmail.com : Mahfuzur-Rahman :
  2. admin@samagrabangla.com : main-admin :
  3. mahmudursir@gmail.com : samagra :
Title :
অপহরণের দেড় বছর পর ফাঁদ পেতে প্রেমিক জুটিকে জামালপুর থেকে আটক করেছে র‌্যাব ও পুলিশ বাহুবলে জননিরাপত্তা আইনে উপজেলা চেয়ারম্যান পুত্র আটক চুনারুঘাটের খালিদ হাসান পেলেন ইন্টারন্যাশনাল ভলেন্টিয়ারস ডে অ্যাওয়ার্ড ২০২২ স্কুলছাত্রী রিয়া হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন বাহুবলের অজ্ঞাত ব্যক্তিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করলো স্থানীয় জনগণ ঢাকা সিলেট মহাসড়কে আলু ও বালু বোঝাই দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ অ্যান্টিবায়োটিক রেসিস্ট্যান্স কী, বুঝবেন কিভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড জমি কেনাবেচার জন্য বাজারদরের পথে এগোচ্ছে সরকার স্প্যাম ই-মেইল আসা বিরক্তকর, বন্ধ করবেন যেভাবে

দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে হচ্ছে সরকারি কর্মচারীরা হাসপাতাল

  • Update Time : বুধবার, এপ্রিল ১৩, ২০২২
রাজধানীর ফুলবাড়িয়ায় অবস্থিত ‘সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল’ছবি: সংগৃহীত

দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে হাসপাতাল পেতে যাচ্ছেন সরকারি কর্মচারীরা। ইতিমধ্যে এই হাসপাতাল নির্মাণে সরকারপ্রধানের কাছ থেকে নীতিগত অনুমোদন পেয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

প্রথম শ্রেণি থেকে চতুর্থ শ্রেণির সরকারি কর্মচারীরা এই হাসপাতাল থেকে চিকিৎসাসেবা নিতে পারবেন। তাঁদের সন্তানেরাও এই হাসপাতাল থেকে চিকিৎসাসেবা পাবেন।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, হাসপাতালগুলো নির্মাণের জন্য স্থান চূড়ান্ত হয়েছে। জমির প্রাপ্যতাও নিশ্চিত হওয়া গেছে। এখন নকশা ও খরচ প্রাক্কলন করে প্রকল্প তৈরি করা হবে।

মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, আটটি বিভাগীয় শহরে একসঙ্গে সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল নির্মাণ করতে গেলে অনেক অর্থের প্রয়োজন হবে। তাই একসঙ্গে সব হাসপাতাল নির্মাণ না করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ শুরু করা হবে। তবে একেকটি হাসপাতাল নির্মাণ করতে কত টাকা খরচ হবে, তা এখন পর্যন্ত ঠিক হয়নি।

সূত্র জানায়, প্রথমে সরকারি তহবিল থেকে এই হাসপাতাল নির্মাণের চেষ্টা করা হবে। সরকারি তহবিল থেকে পুরো অর্থ না মিললে উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে ঋণ নেওয়ার কথাও ভাবছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এই ঋণের ব্যবস্থা করতে ইতিমধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগকে (ইআরডি) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় চিঠি দিয়েছে।

উল্লেখ্য, বিভাগীয় শহরগুলোতে সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল নির্মাণের প্রস্তাবটি গত বছরের ৯ ডিসেম্বর নীতিগত অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সরকারপ্রধানের কাছ থেকে অনুমোদন পাওয়া যায় ১৪ ডিসেম্বর।

তথ্যটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

More News Of This Category