1. mahfujpanjeree@gmail.com : Mahfuzur-Rahman :
  2. admin@samagrabangla.com : main-admin :
  3. mahmudursir@gmail.com : samagra :
Title :
অপহরণের দেড় বছর পর ফাঁদ পেতে প্রেমিক জুটিকে জামালপুর থেকে আটক করেছে র‌্যাব ও পুলিশ বাহুবলে জননিরাপত্তা আইনে উপজেলা চেয়ারম্যান পুত্র আটক চুনারুঘাটের খালিদ হাসান পেলেন ইন্টারন্যাশনাল ভলেন্টিয়ারস ডে অ্যাওয়ার্ড ২০২২ স্কুলছাত্রী রিয়া হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন বাহুবলের অজ্ঞাত ব্যক্তিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করলো স্থানীয় জনগণ ঢাকা সিলেট মহাসড়কে আলু ও বালু বোঝাই দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ অ্যান্টিবায়োটিক রেসিস্ট্যান্স কী, বুঝবেন কিভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড জমি কেনাবেচার জন্য বাজারদরের পথে এগোচ্ছে সরকার স্প্যাম ই-মেইল আসা বিরক্তকর, বন্ধ করবেন যেভাবে

তেলের খরচ কমাতে অভিনব কৌশলের আশ্রয় হোটেল ব্যবসায়ীর

  • Update Time : বুধবার, মার্চ ৯, ২০২২

গত কয় দিনে সয়াবিন তেলের দাম হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় অনেকে সাশ্রয়ী হয়ে উঠেছেন। তেলের খরচ কমাতে অভিনব কৌশলের আশ্রয় নিয়েছেন এক হোটেল ব্যবসায়ী। নাম তাঁর আবদুল হামিদ।

ঠাকুরগাঁও-বালিয়াডাঙ্গী সড়কে মথুরাপুর বাজার। সেই বাজারে খাবার হোটেলের ব্যবসা করেন আবদুল হামিদ। স্ত্রী ও মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে হোটেলটি নিজেই চালান। সেখানে পরোটা, ভাতসহ নানা খাবার পাওয়া যায়।

গতকাল সকাল সাড়ে আটটার দিকে সেখানে গিয়ে দেখা গেছে, আবদুল হামিদ আটা বেলার পর একের পর এক তাওয়ায় ছেড়ে দিচ্ছেন। তাঁর মাথার ওপর ঝুলছে একটি সয়াবিন তেলের বোতল। সেখান থেকে স্বচ্ছ নল বেয়ে ফোঁটায় ফোঁটায় তেল পড়ছে তওয়ায়। সেই তেলে আবদুল হামিদ ভেজে চলছেন মচমচে পরোটা। তাঁর স্ত্রী মনিরা বেগম আর মেয়ে ইমু আকতার সেই পরোটা ভোক্তাদের প্লেটে তুলে দিচ্ছেন।

তিনি জানান, বেশ কয়েক দিন ধরে ভোজ্যতেলের দাম লাগামহীন। বাড়তি দরে তেল কিনে পরোটা তৈরি করতে গিয়ে তাঁর পোষাচ্ছিল না। এরপর পরোটার দাম বাড়িয়ে বিক্রির কথাটাও ভাবলেন। কিন্তু ক্রেতাদের কথা ভেবে চুপসে গেলেন তিনি। পরে তেল সাশ্রয়ের কথাটি তাঁর মাথায় আসে। একপর্যায়ে তেল সাশ্রয়ের প্রক্রিয়াটিও তাঁর ভাবনায় চলে আসে। বাজার থেকে একটি চিকন সাদা পাইপ কিনে তা সয়াবিন তেলের বোতলে লাগিয়ে দেন। আর তেল নিয়ন্ত্রণের জন্য পাইপে লাগিয়ে দেন স্যালাইন সেটের একটি চাকা। বোতল থেকে ফোঁটায় ফোঁটায় তেল তাওয়ায় পড়তে লাগল আর তিনি সেই তেল দিয়ে পরোটা ভাজতে লাগলেন।প্রতিদিন তাঁদের হোটেলে ৫০০ পরোটা ভাজা হয়। সেসব পরোটা ভাজতে তিন থেকে সাড়ে তিন লিটার তেল লাগে। এখন ফোঁটায় ফোঁটায় তেল দেওয়ার কারণে এক লিটার তেল কম যাচ্ছে। এতে তাঁদের সাশ্রয় হচ্ছে।

নাশতা খেতে এসেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাড়তি দামের সময় পরোটার দাম না বাড়িয়ে কীভাবে আগের দামেই (৫ টাকা) বিক্রি করা যায়, সেটার একটা কৌশল উদ্ভাবন করেছেন তিনি।’ তার এই উদ্ভাবন দেখে খুশি হয়েছি।

তথ্যটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

More News Of This Category