1. mahfujpanjeree@gmail.com : Mahfuzur-Rahman :
  2. admin@samagrabangla.com : main-admin :
Title :
বাহুবলে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ পাঠালেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মামা শাহ আলম চৌধুরী প্রয়োজনে আমার বাড়িকে আশ্রয়কেন্দ্র ঘোষনা করব: খন্দকার সুজন বন্যা – কে. এম. রায়হান খান নোয়াঐ গ্রাম এবং স্নানঘাট এর বন্যায় প্লাবিত অঞ্চলের মানুষদের পাশে খন্দকার সুজন সিলেটে পানিবন্দি মানুষের জন্য শুকনা খাবার নিয়ে যাওয়ার পথে ট্রাক দুর্ঘটনা ভেঙে গেছে বাহুবলের অমৃতাবাজার-বড়চরবাজার হয়ে বিশ্বরোড এ আসার রাস্তা সিলেট বিভাগের মধ্যে হবিগঞ্জ জেলার নাম উজ্জ্বল করেছে উদ্ভাবনী বিজ্ঞান ক্লাব দেশের প্রথম সব জেলাতে ইয়ুথ চ্যারিটি অর্গানাইজেশনের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন প্রকাশ্যে মাদক সেবনের প্রতিবাদ করায় যুবকের হাত কামরিয়েছে ড্যান্ডি সেলিম হবিগঞ্জ শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজে ব্রেস্ট ফিডিং কর্ণার স্থাপন।

কমলগঞ্জের ‘টিলাগাঁও ইকো কটেজ’

  • Update Time : বুধবার, মে ২৬, ২০২১

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: প্রকৃতির সাথে মিতালী করে আকাশের সন্নিকটে পাহাড়ি উঁচু টিলায় একেবারের গ্রাম বাংলার রূপ নিয়ে গড়ে উঠেছে ‘টিলাগাঁও ইকো কটেজ’। এটি মৌলভীবাজার জেলার পর্যটন সমৃদ্ধময় কমলগঞ্জ উপজেলার ৮নং মাধবপুর ইউনিয়নের টিলাগাঁও গ্রামে অবস্থিত। গ্রামের নামানুসারে রাখা হয়েছে ‘টিলাগাঁও ইকো কটেজ’ যেন পর্যটকদের আকর্ষিত করছে।

পাহাড়ি টিলার চারদিকে নির্মল সবুজের সমারোহ। সমতল ভূমি থেকে উচ্চতা প্রায় ১৯০ ফুট। উঁচু ওই পাহাড়ের চূড়ায় পর্যটকদের রাত যাপনের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন কটেজটি। কটেজ এঁটেল মাটি ও ছনের তৈরি। রুমের ভেতরে রয়েছে নানা কারুকাজ। শহরে ইট-কংক্রিটের দালানের আড়ালে আকাশ ঢাকা পড়লেও দৃষ্টিনন্দন এ কটেজে বসেই আকাশের সঙ্গে মিতালিতে মন ছুঁয়ে যাবে গ্রামের অনুভূতিতে। কটেজটির পাহাড়ি টিলার নিচে রয়েছে লাভ আকৃতির একটি জলাশয়। জলাশয়ের তিন পাশেই পাহাড়ি টিলা। পশ্চিম পাশের টিলায় চলছে সুইমিং পুলের কাজ। পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত এ কটেজটি যে কাউকে মুগ্ধ করবে। নানান প্রজাতির ফলদ বৃক্ষের ডালে ঝুলছে নানান ধরনের দোলনা। রয়েছে রিসিপশনের চৌকি। একই স্থানে প্রকৃতির এমন বাহারি সৌন্দর্য্যরে সমাহার খুব কম জায়গায়ই মেলে।

চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে পর্যটকদের জন্য এ ইকো ভিলেজ উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। কিন্তু করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার ঘোষিত লকডাউনের কারণে পর্যটক না আসলেও এখন স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিদিন সেখানে উঠছেন পর্যটকরা। ইকো ভিলেজের দায়িত্বে থাকা ম্যানেজার সায়হান সিদ্দিকী হৃদয় বলেন, ‘প্রতি শুক্র ও শনিবারে কটেজের রুম ভাড়া ৩ হাজার ২০০ টাকা এবং অন্যদিনের জন্য ২ হাজার ৭০০ টাকা।

কটেজে যাওয়ার পথে রাস্তার পাশে চোখে পড়বে গ্রামবাংলার মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক দৃশ্য। টিলাগাঁও ইকো ভিলেজের উত্তরে কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, দক্ষিণে মাধবপুর লেক, বীর শ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী হামিদুর রহমানের স্মৃতিসৌধ ও হামহাম জলপ্রপাত। এ ছাড়া দক্ষিণ ও পশ্চিম পাশে রয়েছে সারি সারি সবুজ চায়ের বাগান। পাশেই রয়েছে খাসিয়া ও মণিপুরী পল্লী। এসব স্থান খুব সহজেই ঘুরে দেখা সম্ভব। কটেজ থেকে শ্রীমঙ্গল শহরের দূরত্ব প্রায় ১৮ কিলোমিটার ও মৌলভীবাজার শহরের দুরত্ব প্রায় ২২ কিলোমিটার আর কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের দূরত্ব মাত্র ৬ কিলোমিটার।

টিলাগাঁও ইকো কটেজ ইতিমধ্যেই সকলের নজর কেড়েছে। প্রকৃতির নির্মল পরিবেশে একটু প্রশান্তির ছোঁয়া পেতে ঘুরে আসতে পারেন এই কটেজে। মনকে চাঙ্গা ও সতেজতা রাখতে দৃষ্টি নন্দন গ্রাম বাংলার রূপ আপনাকে দেবে ভালোবাসা আর ভালোবাসা। হারিয়ে যেতে মন চাইবে অনন্তকাল।

তথ্যটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে শেয়ার করুন

More News Of This Category